দুবাইয়ে ফুল হয়ে ফুটলেন ঋদ্ধিমান!‌ বাঙালির ব্যাটে ভর করে জয় পেল হায়দরাবাদ

খেলাধুলা

[ad_1]

দুবাইয়ে ফুল হয়ে ফুটলেন ঋদ্ধিমান!‌ বাঙালির ব্যাটে ভর করে জয় পেল হায়দরাবাদ

মঙ্গলবার যেন ঝড় তুলেছিলেন হায়দরাবাদের ব্যাটসম্যানরা।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ:‌ ২১৯/‌২ (‌২০)‌

দিল্লি ক্যাপিটালস:‌  ১৩১/১০ (‌১৯)‌

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ৮৮ ‌জয়ী রানে।


‌দুর্গাপুজো সবে কেটেছে। আর সেই উপলক্ষেই যেন ঝকঝকে এক ইনিংস উপহার দিলেন ঋদ্ধিমান সাহা। খেলায় জানালেন শুভ বিজয়া। ঋদ্ধি আর ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাটে ভর করে বিরাট রানের ইনিংস উপহার দিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ২০ ওভার শেষে দলের রান দাঁড়াল ২১৯ রান। ২২০ রানের বিশাল রানের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছিল তাঁরা।

মঙ্গলবার যেন ঝড় তুলেছিলেন হায়দরাবাদের ব্যাটসম্যানরা। প্রথম থেকেই এদিন রণংদেহী মূর্তিতে ছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার ও ঋদ্ধিমান সাহা। প্রথম ছ’‌ওভারে তাঁরা তুলে নেন ৭৫ রান। তখনই স্থির হয়ে গিয়েছিল, ম্যাচের রাশ প্রথম থেকেই থাকছে আইপিএল তালিকায় তলার দিকে থাকা হায়দরাবাদের। ৯ ওভারেই ১০০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে যায় হায়দরাবাদ। জন্মদিনে ঝকঝকে ৫০ সেরে ফেলেন ডেভিড ওয়ার্নার। অক্ষর প্যাটেলের বলে তিনি যখন ফেরেন তখন ৯.‌৪ ওভারে হায়দরাবাদ পৌঁছে গিয়েছে ১০৪ রানে। ব্যক্তিগত ৬৬ রানে ফিরে যান ওয়ার্নার। তখন সবাই ভাবছিলেন, আজকের ম্যাচে ওয়ার্নারের ইনিংসই সেরা। কিন্তু ব্রেস্টোর জায়গায় সুযোগ পাওয়া ঋদ্ধিমান যে এমন খেলে দেবেন হঠাৎ করে তা বোধহয় হায়দরাবাদের টিম ম্যানেজমেন্টও ভাবেনি। টানা দিল্লির বোলারদের তুলোধনা করতে থাকেন ঋদ্ধি। সেরে ফেলেন নিজের পঞ্চাশ রান। একসময় মনে হচ্ছিল, তিনি আজ সেঞ্চুরি সেরে ফেলবেন। কিন্তু দ্রুত রান তোলের তাড়ায় চালিয়ে খেলতে গিয়ে নোকিয়ার বলে আউট হয়ে ফেরেন ঋদ্ধিমান সাহা। ততক্ষণে তিনি পৌঁছে গিয়েছেন ৮৭ রানে। আর দলের স্কোর ১৭০। ঋদ্ধিমানের ঝকঝকে ইনিংস তাঁকে নতুন করে প্রতিষ্ঠা দিল টি২০ ফরম্যাটে। তারপর ব্যাট করতে আসেন মণীশ পাণ্ডে ও কেন উইলিয়ামসন। তাঁরাও হাত খুলে ব্যাট করতে শুরু করেন। শেষ পর্যন্ত মণীশের মারমুখী ব্যাটিংয়ে ভর করে হায়দরাবাদ পৌঁছে যায় ২১৯ রানে।



বল হাতে এদিন যেন দুঃস্বপ্ন দেখেছেন দিল্লির খেলোয়াড়রা। কেউ বাঁচাতে পারেননি আজ তাঁদের। রাবাডা, পার্পল ক্যাপ হোল্ডার এই ম্যাচে কোনও উইকেট তো পাননি বটেই, বরং চার ওভারে দিয়েছেন ৫৪ রান। রান দেখলেই বোঝা যায়, বোলারদের আজ শিরে সংক্রান্তি ছিল। তাই আলাদা করে কাউকে নিয়ে আর কিছু বলার উপায়। হায়দরাবাদের ব্যাটিং ধ্বংস করে দিয়েছে দিল্লির বোলিংকে।

ব্যাট করতে নেমে খুব একটা বড় প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেনি দিল্লি। প্রথম থেকেই নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট পড়তে থাকে দিল্লির। রানের গতিও তেমন বেশি ছিল না। রাহানে (‌২৬)‌ কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও লাভ হয়নি। আসলে রানের পাহাড় এমনভাবে চেপে বসেছিল দিল্লিকে যে তাঁরা আর উঠে দাঁড়াতে পারেননি দিল্লির খেলোয়াড়রা। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ খেলা ৮৮ যেতে রানে।



Published by:
Uddalak Bhattacharya


First published:
October 27, 2020, 10:59 PM IST

পুরো খবর পড়ুন

[ad_2]

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।