চোর অপবাদে ব্যবসায়ীকে নির্যাতনের ঘটনায় মামলা

বাংলাদেশ

ভোলার বোরহানউদ্দিনে চোর অপবাদে দঁড়ি দিয়ে বেঁধে এক মুদি ব্যবসায়ীকে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। গত মঙ্গলবারের (১২ জানুয়ারি) ঘটনার চার দিন পর শুক্রবার রাতে ওই ব্যবসায়ীর বাবা বাদী হয়ে বোরহানউদ্দিন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

রবিবার নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

এ ঘটনায় ব্যবসায়ী ইয়ামিন কাজী (৩২) কে আশংঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। তিনি উপজেলার দেউলা কাজি বাড়ীর শহীদুল হক কাজীর ছেলে। এ ঘটনায় বোরহানউদ্দিন থানায় মামলার পর পুলিশ এর সাথে জড়িত আলম (৩০) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) সকালে ব্যবসায়ী ইয়ামিন কাজী বাড়ি থেকে অটোরিক্সায় করে ২টি গরু নিয়ে তার শ্বশুর ছিদ্দিক মাতাব্বরের বাড়িতে যাওয়ার সময় উপজেলার কুতুবা ইউনিয়নের শান্তির হাট বাজারের পূর্বপাশে পদ্মা ব্রিক্স এর সামনে স্থানীয় ২০/২৫ জন লোক অটোরিকশার গতিরোধ করে এবং তারা গাড়িতে থাকা গরু ২টি নিয়ে যেতে টানা টানি শুরু করেন। এ সময় ইয়ামিন গরু দিতে অস্বীকৃতি জানালে, তাকে গরু চোর অপবাদ দিয়ে গরুর রশি দিয়ে বেধেঁ অমানবিক নির্যাতন চালায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে বোরহানউদ্দিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়া হয়।

বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল আমিন জানান, এ ঘটনায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরো ৮/১০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে একটি মামলা হয়েছে। ইতিমধ্যে এ ঘটনায় জড়িত আলম নামে এক আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকীদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।