দিনাজপুরে টানা ১১ বার হারলো আওয়ামী লীগ

সকল জেলা

টানা দশবারের পর দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে এবারও হার ঠেকাতে তৎপর ছিলেন প্রার্থীসহ আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা। কিন্তু এবার নিয়ে টানা ১১ বার হারলো আওয়ামী লীগ।

তীব্র দলীয় কোন্দল ও ভুল প্রার্থী বাছাইকে দায়ী করছে নেতা কর্মীরা। অন্যদিকে প্রার্থীর দাবি দলের নেতা কর্মীদের অহসযোগীতাই এর কারণ। আবার বিএনপি বলছে, আওয়ামী লীগের অন্যায় আচরণের জবাব দিয়েছে পৌরবাসী।

শনিবার দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী প্রায় দ্বিগুন ভোটের ব্যবধানে জয় পান। আবার হারার কারণ নিয়ে চলছে নানা বিশ্লেষণ, অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগ। 

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল বলেন, “নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বিজয়ী হোক এমনটি উপর মহলের অনেকেই চায়না।” 

আওয়ামী লীগ মনোনিত মেয়র প্রার্থী রাশেদ পারভেজ বলেন, “আমার একান্ত শুভাকাঙ্খী ছাড়া কেউই সহযোগিতা করেনি।”

সরাসরি আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে নেই কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের দল হিসেবে আওয়ামী লীগকে সমর্থন করে নৌকাকে জেতাতে মাঠে ছিলেন তাদের কয়েকজন বলছেন হারের কারণ দলের বিরোধ। 

দিনাজপুর নাট্য সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজাউর রহমান রেজু বলেন, “ঐক্যবদ্ধভাবে তাদের নির্বাচনে নামা উচিত ছিল কিন্তু আমরা সেটা দেখিনি।”

পর পর তিনবার আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর বিএনপি বলছে, বিভিন্ন সময়ে যে অন্যায় করা হচ্ছে তার জবাব ভোটে দিয়েছেন সাধারণ মানুষ। 

দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচিত মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “ব্যালট যুদ্ধের মাধ্যমে জনগণ নিরব বিপ্লব ঘটিয়েছে।”