খাল ভরাট করে চলছে বালির ব্যবসা, নির্মাণ করা হচ্ছে মার্কেট

সকল জেলা

ভোলার লালমোহনে অবৈধভাবে খাল, পুকুর ও জলাশয় ভরাটের অভিযোগ উঠেছে পৌর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। খাল ভরাটের মাধ্যমে চলছে রমরমা বালির ব্যবসা আর মার্কেট নির্মাণ। এছাড়া, বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতা দেখা দেয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন মানুষ।

কয়েক বছর আগেও ভোলার লালমোহনে আধা কিলোমিটারের বেশি এলাকাজুড়ে ছিল খালটি। এটি যুক্ত ছিল তেঁতুলিয়া নদীর শাখা খালের সাথে। সেই খালে এক সময় নৌকা, ট্রলার যাতায়াত করত। মাছ ধরত জেলেরা। 

কিন্তু ক্রমেই ভরাট হয়ে যায় খালটি। কিন্তু এটি রক্ষায় কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো ভরাট করে অবৈধভাবে জেলা পরিষদের জমিতে মার্কেট নির্মাণ করে লালমোহন পৌর কর্তৃপক্ষ। এতে পরিবেশের যেমন ক্ষতি হয়েছে, তেমনি জলাবদ্ধতায় বিপাকে পড়েছে মানুষ।

শুধু এ খালটিই নয়, লালমোহন পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মিজির খালেও বাঁধ দিয়ে চলছে বালির ব্যবসা।

এদিকে, পুকুর, জলাশয় ভরাটের অনুমোদনসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে লালমোহন পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক সফিকুল ইসলাম বাদল।

তিনি বলেন, নামে বেনামে বিদেশে যে টাকা পাচার করেছেন তার বিরুদ্ধে আমি মেয়রের নামে আমলা করেছি। উনি একজন দুর্নীতিবাজ এবং এসবের প্রমাণও আমাদের কাছে আছে।

তবে পৌর মেয়র এমদাদুল ইসলাম তুহিন জানান, খাল শুকিয়ে যাওয়ায় সেখানে ড্রেন করে মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। এটি খাল ছিল কাগজে-কলমে,কিন্তু এটি ভরাট হয়ে হয়ে ড্রেনে রুপান্তরিত হয়ে গেছে। এই ড্রেন করে দেয়ার কারণে সে এলাকার মানুষ স্বাচ্ছন্দে বসবাস করতে পারছে।

এদিকে জেলা পরিষদের সদস্য মনিরুল ইসলাম হাওলাদার জানান, লালমোহন পৌরসভা নিষেধ অমান্য করে খাল দখল করে মার্কেট নির্মাণ করেছে। আমরা তাকে এই মার্কেট ভাঙ্গার জন্য চিঠিও দিয়েছি। সে তার প্রভাব খাটিয়ে এই মার্কেট নির্মাণ করেছেন।

এলাকাবাসীর দাবি পরিবেশ রক্ষায় দ্রুত বেদখল হয়ে যাওয়া খাল যেন উদ্ধার করা হয়।