সৌদি আরব ও আমিরাতে সমরাস্ত্র বিক্রি স্থগিত করলো আমেরিকা

আন্তর্জাতিক

সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছে সমরাস্ত্র বিক্রি এই মুহূর্তে স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন বলেছেন, অস্ত্র বিক্রির ক্ষেত্রে মার্কিন কৌশলগত লক্ষ্য ও পররাষ্ট্রনীতির বিষয়টি এখানে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে কিনা তা পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে। খবর ফিনানসিয়াল টাইমস।

খবরে জানায়, সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে সামরিক সরঞ্জাম বিক্রির বিষয়ে বহু চুক্তি করেছেন। তিনি এসব চুক্তিকে তার সরকারের বড় সাফল্য হিসেবে দাবি করেছেন। এর সবই এখন পর্যালোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন নতুন প্রশাসন। ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার শেষ মুহূর্তেও আমিরাতের সঙ্গে অস্ত্র বিক্রির চুক্তিতে সই করেছেন।

প্রভাবশালী মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল প্রথম সৌদি-আমিরাতের কাছে মার্কিন সমরাস্ত্র বিক্রি স্থগিতের খবর দেয়।

২৭ জানুয়ারি প্রকাশিত ওই খবরে বলা হয়, বাইডেন প্রশাসন মধ্যপ্রাচ্যের এই দুই দেশের কাছে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারের সমরাস্ত্র বিক্রির প্রক্রিয়া সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে। এর মধ্যে সৌদি আরবের কাছে প্রিসিশন গাইডেড মিউনিশন্স থেকে শুরু করে আমিরাতের কাছে অত্যাধুনিক এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান বিক্রির মতো সিদ্ধান্তগুলোও রয়েছে।

নির্বাচনি প্রচারণায় সৌদি আরবের সঙ্গে ওয়াশিংটনের সম্পর্ক পর্যালোচনা বা পুনর্মূল্যায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন জো বাইডেন। এখন নির্বাচনে জিতে হোয়াইট হাউজে অভিষেকের এক সপ্তাহের মধ্যেই এ সিদ্ধান্ত নিলো তার প্রশাসন।

ইয়েমেনের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর উপর ঘোষণা দিয়ে হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। এই হত্যাকাণ্ডে ব্যবহার করা হচ্ছে আমেরিকা ও ইউরোপের দেওয়া অস্ত্র।