৬৩ পৌরসভায় চলছে ভোট

বাংলাদেশ

৬৩টি পৌরসভার ভোটগ্রহণ চলছে। তৃতীয় ধাপের এই নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে সকাল ৮টায়, চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

তেষট্টি পৌরসভার মেয়রপদে লড়াই হচ্ছে ৬১টিতে, ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে ৮টি পৌরসভায়। সব পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় লাকসাম পৌরসভায় ভোট হচ্ছে না। এছাড়া একইসঙ্গে দুই পৌরসভায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হওয়ায় মেয়রপদে ভোট হচ্ছে ৬১টিতে। প্রার্থী মারা যাওয়ায় ত্রিশালের ভোট স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

দুই ধাপে ৮৪ পৌরসভায় নির্বাচনের পর, শনিবার তৃতীয় ধাপে ৬৩ পৌরসভায় ভোট। তৃতীয় ধাপে ৬৪ পৌরসভায় তফসিল ঘোষণা হয়। আগে স্থগিত হওয়া পাবনার সুজানগর পৌরসভা যুক্ত হলে মোট ৬৫ পৌরসভায় ভোট হবার কথা ছিলো।

ময়মনসিংহের ত্রিশাল পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত ও কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভায় সব পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ৬৩ পৌরসভায় ভোট হবে। এই ধাপে সব পৌরসভায় ভোট হবে ব্যালটে। 

টুঙ্গিপাড়া, লাকসাম ও বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে একক প্রার্থী থাকায় তারা বিনাপ্রতিদন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বাকি ৬১ পৌরসভায় মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন ২শ ৩২ জন। ৬৩ পৌরসভায় সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ২ হাজার ৩শ ৭৪ জন আর সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৭শ ৫৯ জন প্রার্থী লড়বেন।  

আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ দেশের ১১টি রাজনৈতিক দল এই ধাপের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হওয়ার কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। আচরণবিধি ভঙ্গ করলে নেয়া হবে কঠোর ব্যবস্থা। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কতজন মোতায়েন করা হবে তা নির্ভর করে ওই এলাকার ভোটারের উপর। এই ধাপে আমরা ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত ৮টি পৌরসভায় অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করেছি।

নির্বাচনি এলাকায় ভোটের দিন ট্রাক, পিকআপ ও ইঞ্জিনচালিত নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।