চসিক নির্বাচনে ভোট পড়েছে ২২ দশমিক ৫২ শতাংশ

সকল জেলা

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে ভোট কম পড়ার কারণ সহিংসতা-ভীতি বলছেন ভোটাররা, নবনির্বাচিত মেয়রের দাবি বিএনপির নেতিবাচক প্রচার।

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে মোট ভোটার ১৯ লাখ ৩৮ হাজার। অথচ ভোট পড়েছে মাত্র সাড়ে ৪ লাখ। ভয়-ভীতি, সহিংসতাসহ নানা কারণকে দায়ী করছেন ভোটাররা। আর বিএনপির ক্রমাগত নেতিবাচক প্রচারে ভোটার উপস্থিতি কম হয়েছে বলে দাবি করেছেন নবনির্বাচিত মেয়র।   

ভোটের আগে চট্টগ্রাম সফরে আসেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। নির্বাচনি পরিবেশ ভাল রয়েছে জানিয়ে সবাইকে উৎসবের মেজাজে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন তিনি। 

তবে, আশ্বস্ত হতে পারেননি ভোটাররা। মাত্র ২২ দশমিক পাঁচ দুই শতাংশ ভোটার দিয়েছেন ভোট।

নির্বাচনের দিন ও তার আগে সহিংসতায় মারা গেছে তিনজন। স্থানীয়রা বলছেন, বেশকটি কেন্দ্রে সংঘর্ষসহ নানা কারণে ভোট দেননি তারা।

তারা বলেন, অনেক ধরণের সহিংসতার ঘটনা ঘটছে। প্রার্থীদের মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় মারামারি হচ্ছে। সহিংসতায় কয়েকজন মানুষ মারাও গিয়েছে। মানুষ অনেক ভয়ে ছিল আসলে ভোট দিতে যাবে কি না। নিরাপত্তার কথা ভেবেই অনেকে ভোট দিতে যায়নি।

এদিকে, ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ার জন্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের অনাকাঙ্ক্ষিত নানা তৎপরতাকে দায়ী করেছেন অনেকেই।

আর নবনির্বাচিত মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, প্রত্যেকেই কর্মজীবী মানুষ, তাই প্রথমে তারা তার কর্মকেই প্রাধান্য দিয়ে থাকবে। তাই ভোটের দিন বেশিরভাগই কাজে চলে গিয়েছে। আর যারাই ভোটে অংশগ্রহণ করেছে তাদের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠ যাকে ভোট দিয়েছে সেই বিজয়ী হয়েছে এটাই স্বাভাবিক।

এছাড়া বিএনপির ক্রমাগত নেতিবাচক প্রচারে ভোটার উপস্থিতি কম হয়েছে বলেও জানান নবনির্বাচিত মেয়র।