পঞ্চগড়ে মৃতপ্রায় কয়েকটি নদী ও খালে ফিরেছে প্রাণ

সকল জেলা

পুণ:খননের ফলে পঞ্চগড়ের মৃতপ্রায় কয়েকটি নদী ও খাল ফিরে পেয়েছে প্রাণ। এতে শুষ্ক মৌসুমেও নদীতে মিলছে পানি।

শুষ্ক মৌসুমেও নদীর দুকূল ছাপিয়ে বইছে পানি। নদীর জলে ছন্দ পেয়েছে মাছসহ জলজ উদ্ভিদ। নদীর চারপাশের ফসলি জমি পাচ্ছে সেচ সুবিধা।  

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর এলাকা দিয়ে প্রবাহিত ভেরসা নদী। শুষ্ক মৌসুমে যেখানে পানিশূণ্য থাকতো নদী, আবাদ করা হতো ফসলের। কিন্তু এবারের চিত্র ভিন্ন। নদী পুণরুদ্ধারে গেল বছর সরকারের উদ্যোগে নদীর ১০ কিলোমিটার পুণ:খনন করায় পাল্টে যায় পরিস্থিতির। 

এখন বারো মাস সেচ সুবিধা থাকায় খুশি স্থানীয়রা। তারা বলেন, এই নদী আগে শুকনো অবস্থায় ছিল বালুচর ছিল। কিন্তু এখন এখানে পর্যাপ্ত পানি পাচ্ছি আমরা। আমাদের ফসলের ক্ষেতে ঠিকমত সেচ দিতে পারছি। আমরা সব ধরণের ফসল চাষ করতে পারছি।

খননের পর নদীর পাড়গুলোর বৃক্ষরোপন করায় সৌন্দর্যও বেড়েছে বহুগুণে। শুধু ভেরসা নয়, পঞ্চগড়ের আরও ৩ টি নদী ও একটি খাল পুণ:খনন করা হয়েছে।   

এই খনন নদী ও পরিবেশ রক্ষায় সরকারের ডেল্টা প্ল্যানের অংশ বলে জানায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মোছান্না গালিব। তিনি জানান, এই খননের ফলে নদীগুলোর নাব্যতা বৃদ্ধি পেয়েছে। নাব্যতা বৃদ্ধির ফলে পানির পরিমাণও বেড়েছে। কৃষকরাও তাদের চাষাবাদে নদীর পানি ব্যবহার করতে পারছে। সুষ্ক মৌসুমেও পানি থাকায় মাছ চাষ করে তারা তাদের আমিষের চাহিদা পূরণ করছে।

নদীর গভীরতা ধরে রাখতে খনন কাজ চলমান রাখার দাবি সংশ্লিষ্টদের।