বাংলাদেশ-উইন্ডিজ টেস্ট শুরু সকাল সাড়ে ৯টায়

খেলাধুলা

বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট যুদ্ধ। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চাপ নয়, মাঠে নিজেদের স্বাভাবিক খেলা খেলেই জয় তুলে নিতে চায় টাইগাররা। আর ওয়ানডে সিরিজ ভুলে সাদা পোশাকে ফাইট ব্যাকের টার্গেট ক্যারিবিয়দের।

ওয়ানডের মতো টেস্ট সিরিজের আগেও বেশ ফুরফুরে টিম টাইগার্স। মাঠের লড়াইয়ে ততটা নির্ভার থাকার সুযোগ আছে কি? টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এখনো যে কোন পয়েন্টই যোগ করতে পারেনি বাংলাদেশ।

ম্যাচের আগের দিন অনুশীলনে অতোটা সিরিয়াস ছিলো না টাইগার শিবির। ব্যাটে বলে হালকা ঝালিয়ে নিয়েছেন তামিম-সাকিব, মুশফিকরা। টিম মিটিংকেই গুরুত্ব দিয়েছে কোচিং স্টাফ। ম্যাচ পরিকল্পনা নিয়ে ক্যাপ্টেন মুমিনুলের সাথে হেডকোচের আলোচনাটা হয়েছে দীর্ঘ।

লম্বা ব্রেকের পর নতুন করে শুরু হচ্ছে মিশন। সাগরিকায় খেলা বলেই আলোচনায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে সেই লজ্জাকর হার। চাপ নয় বরং টাইগারদের মনোযোগ মাঠের খেলায়। টেস্ট সিরিজটায়ও জয় চান ক্যাপ্টেন মুমিনুল।

টেস্ট ক্যাপ্টেন মুমিনুল হক বলেন, আফগানিস্তানের সঙ্গে কি হয়েছিল তা মনে রাখতে চাই না। করোনার পর আমরা নতুন করে মাঠে নামছি তাই ওইভাবেই শুরু করার চেষ্টা করবো।

প্রতিপক্ষের শক্তি দুর্বলতা বিবেচনায় সাজানো হবে একাদশ। সেভাবেই তৈরি হয়েছে স্বাগতিক শিবির। টিম কম্বিনেশন কেমন হবে.. তার কোন আভাস মেলেনি.. টসের আগে হবে সেই সিদ্ধান্ত। ইনজুরিতে সাকিবের খেলা নিয়ে শঙ্কা থাকলেও আশাবাদি ক্যাপ্টেন। 

মুমিনুল হক বলেন, সাকিব দলে থাকলে কম্বিনেশনটা ভালো হয়। ব্যাটিং বোলিং সব পজিশনে একটা ভারসাম্য থাকে। দল নিয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত হয় নাই। ম্যানেজমেন্ট যেভাবে সিদ্ধান্ত নিবে সেভাবেই হবে।

ওয়ানডের মতো আর ভুল করেনি উইন্ডিজ টেস্ট স্কোয়াড। ম্যাচের আগের দিন অনুশীলনে বেশ সিরিয়াস অতিথিরা। করোনাকালে সাদা পোশাকে দুইটা সিরিজ খেলার অভিজ্ঞতা আছে সেটা থেকেই অনুপ্রাণিত হচ্ছে ক্যারিবিয় শিবির। টেস্ট সিরিজের আগে ফটো সেশনটাও সেরে নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।   

ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক ক্রেইগ ব্রাথওয়েট বলেন, বাংলাদেশের স্পিনারদের নিয়ে বিশেষ করে সাকিবের জন্য আমাদের আলাদা প্ল্যান আছে। মাঠের খেলায়তো চ্যালেঞ্জ থাকবেই। তবে পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করতে পারলে জয় অসম্ভব না।

সাম্প্রতিক সময়ে উইন্ডিজদের থেকে বেশ এগিয়ে স্বাগতিক বাংলাদেশ। তবে পরিসংখ্যান বলছে সাদা পোশাকে ক্যারিবিয়দের দাপট। হেড টু হেডে ১৬ ম্যাচে ১০টাতেই জয় সফরকারীদের। টাইগাররা জিতেছে চারটায়।