করোনার টিকা নিচ্ছেন প্রধান বিচারপতি, মন্ত্রী ও সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা

বাংলাদেশ

রবিবার করোনার টিকা নেবেন প্রধান বিচারপতি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রীসহ সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

আজ শনিবার স্বাস্থ্যের ডিজি অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম এ তথ্য জানিয়েছেন।

ভারত থেকে করোনার ভ্যাকসিন আসার পর ২৭শে জানুয়ারি রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে শুরু হয় পরীক্ষামূলক টিকা দেয়ার কাজ।  দুই দিনে পাঁচশ ৬৭ জনকে দেয়া হয় ভ্যাকসিন। এরপরই শুরু হয় ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য রেজিষ্ট্রেশন কার্যক্রম।

 শনিবার দুপুর পর্যন্ত টিকা নিতে তিন লাখ ২৮ হাজার ১৩ জন রেজিষ্ট্রেশন করেছে বলে জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক। বলেন, এরইমধ্যে টিকা দান কর্মসূচীর ৭৫ শতাংশ প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

রবিবার দেশজুড়ে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।  সকাল ৯টা থেকে সারা দেশে একযোগে করোনার টিকা প্রয়োগ শুরু হবে।  

রাজধানীর সরকারি ৪৩টি হাসপাতালে দেয়া হবে করোনার টিকা।  ঢাকা উত্তর সিটির ৩০টি ও দক্ষিণ সিটির ১৯টি কেন্দ্রে ৩শ ৪৩টি টিম টিকা প্রয়োগে কাজ করবে।  

এদিকে, রেজিস্ট্রেশনের জন্য গেল ৪ঠা ফেব্রুয়ারি অ্যাপটি গুগল প্লে স্টোরে আসার কথা থাকলেও তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।  তাই যারা করোনার টিকা পেতে অগ্রাধিকারের তালিকায় রয়েছেন এবং অনলাইনে আবেদন করতে পারছেন না তাদের জন্য স্পটে রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

টিকা নেয়ার চার সপ্তাহ পর করোনার দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।