টিকা কার্যক্রম উদ্বোধনে মাহি বি চৌধুরী না থাকায় অসন্তোষ

সকল জেলা

মুন্সিগঞ্জে করোনার টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন তিন এমপির দু’জন, আরেক সংসদ সদস্য মাহি বি চৌধুরী উপস্থিত না থাকায় স্থানীয়দের অসন্তোষ।

সারাদেশের মতো মুন্সিগঞ্জে শুরু হয়েছে টিকাদান কার্যক্রম। রবিবার(৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে টিকা গ্রহণের মধ্যে দিয়ে করোনার ভ্যাকসিন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মুন্সিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস। তবে মুন্সিগঞ্জের তিনটি সংসদীয় আসনের তিন এমপির মধ্যে দু’জন উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না আরেক এমপি মাহি বি চৌধুরী।

স্থানীয়দের অভিযোগ, করোনাকালীন সংকটে এমপি হিসেবে মাহি বি চৌধুরী ভূমিকা নিয়ে সন্তুষ্ট না এলাকাবাসী। টিকা কার্যক্রম অনুষ্ঠানে তিনি না থাকায় স্থানীয়দের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আঞ্জুমান আরা জানান, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ প্রশাসন, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের উপস্থিতিতে টিকা কার্যক্রম অনুষ্ঠান শুরুর কথা বলা ছিল। তবে, খোঁজ নিয়ে জেনেছি স্থানীয় সংসদ সদস্য মাহি বি চৌধুরী দেশে নেই। আমি এ হাসপাতালে কর্মরত থাকা অবস্থায় তার উপস্থিতি দেখিনি।

সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন জানান, টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্য মাহি বি চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন না। তিনি এমপি হলেও তার ব্যক্তিগত ব্যবসা-বাণিজ্য নিয়েই বেশি সময় ব্যস্ত থাকেন। সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার দুই বছরের মধ্যে এক বছর ১০ মাস তিনি অনুপস্থিত ছিলেন।

শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসাম্মাৎ রহিমা আক্তার জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্য দেশে নেই। সরকারি নির্দেশনায় তার উপস্থিত থাকার কথা উল্লেখ ছিল। তবে তিনি না থাকলেও কার্যক্রম ঠিকমতো শুরু হয়।

শ্রীনগর উপজেলার বিকল্প ধারার সদস্য সচিব মোঃ ঝিলু জানান, দেশের বাহিরে থাকলেও তিনি নিয়মিত খোঁজখবর নিচ্ছেন। পারিবারিক কাজ ও করোনার জন্য দেশে আসতে দেরি হচ্ছেন। দুই মাস ধরে তিনি দেশের বাহিরে বলে দাবি করেন তিনি।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে জানান, করোনার মধ্যেও মাহি বি চৌধুরীর ভূমিকা ছিল না বললেই চলে। টিকা কার্যক্রমে জনগণকে উৎসাহিত করার জন্য তার উপস্থিত থাকার দরকার ছিল। বাকি দুই আসনের এমপি স্থানীয় কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত থাকলেও শ্রীনগর ও সিরাজদিখান উপজেলাধীন মুন্সিগঞ্জ-১ আসনের এমপি দীর্ঘদিন ধরেই অনুপস্থিত।

এদিকে, সকাল ১১টায় মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে যা বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলে।

মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে টিকাকেন্দ্রে প্রথমে টিকা নেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ জেলা শাখার সভাপতি মোঃ আখতার হোসেন বাপ্পী। মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে টিকাদান কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন, মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস, জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার, পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন পিপিএম, সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদসহ অনেকেই।