১৩১ রানেই থেমে গেলো টাইগাররা

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের শুরুটা হয় ছয় দিয়ে। মিচেল স্টার্কের দ্বিতীয় বলেই ওভার বাউন্ডারি মারেন নাঈম শেখ। তবে সেই উত্তাপ ধরে রাখতে পারেনি তারা। নিমিষেই যেন ঝিমিয়ে যায়।

স্বাচ্ছন্দ্যে ছিলেন না ওপেনার সৌম্য সরকার। অজি বোলারদের দাপটে বেশ ভুগছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত পরাস্ত হন হ্যাজেলউডের কাছে। ৯ বলে ২ রান করে বোল্ড হয়ে ফিরে যান তিনি।

মন্থর ব্যাটিংয়ে সেই যে চাপ ভর করল, সেটা তাড়ান গেল না ইনিংসের শেষ পর্যন্ত। শেষমেশ বাংলাদেশের ইনিংস শেষ হয়েছে সাত উইকেট হারিয়ে ১৩১ রানে। ফলে প্রথম ম্যাচ জিততে অজিদের সামনে লক্ষ্য দাঁড়িয়েছে ১৩২ রানের।

১০ ওভার শেষে স্কোরবোর্ডে ২ উইকেটে আটান্ন। টাইগাররা উইকেট হারিয়েছে নিয়মিত। গড়ে ওঠে নি পার্টনারশিপ। ইন্ডিভিডুয়াল ফিফটি তো নাই-ই। নাই কোন পঞ্চাশ রানের জুটিও। রানের চাকা সচল রাখতে পারে নি কেউই। ১৬ তম ওভার পর্যন্তও তাই রান রেট ছয় ছাড়ায়নি। 

একাই যা একটু লড়েছেন সাকিব। ৩৩ বলে করেন ৩৬ রান। শেষদিকে ১৭ বলে ২৩ আসে আফিফের ব্যাটে। হ্যাজেলউডের ৩ শিকারের সাথে স্টার্কের দুই উইকেট। টাইগারদের বোর্ডে জমা ১৩১ । 

ছোট লক্ষ্য। চাপ নাই। তাতে কি? শুরু থেকেই অল-আউট স্পিনে অস্ট্রেলিয়াকে চেপে ধরে বাংলাদেশ। ১১ তুলতেই প্যাভিলিয়নে তিন ব্যাটসম্যান। কেরি, ফিলিপ্পের পর আউট হেনরিকসও।

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ।

করোনার কারণে অজিদের দেওয়া অসংখ্য শর্ত মেনে পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ আয়োজন করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চাহিদা পূরণে আন্তরিকতার কমতি রাখেনি বোর্ড। সব শর্ত মেনেই শেষ পর্যন্ত শুরু হয়েছে সিরিজ।

সিরিজের বাকি চারটি ম্যাচ মাঠে গড়াবে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট। প্রতিটি ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায় মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ।

বাংলাদেশ একাদশ: মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম, সাকিব আল হাসান, নুরুল হাসান (উইকেটকিপার), আফিফ হোসেন, শামীম হোসেন, মেহেদী হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, শরীফুল ইসলাম, নাসুম আহমেদ।

অস্ট্রেলিয়া একাদশ: অ্যালেক্স ক্যারি, জশ ফিলিপি, মিচেল মার্শ, ময়জেস হেনরিকস, ম্যাথু ওয়েড (অধিনায়ক, উইকেটকিপার), অ্যাশটন টার্নার, অ্যাশটন অ্যাগার, মিচেল স্টার্ক, অ্যান্ড্রু টায়, অ্যাডাম জাম্পা, জশ হ্যাজলউড।