মমেকে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ৩০ জনের মৃত্যু

বাংলাদেশ

গত ২৪ ঘন্টায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে সর্বোচ্চ ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা আক্রান্তে ১৬ জন এবং করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যায় ১৪ জন।

এ তথ্য নিশ্চিত করে করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন জানান, মৃতদের মধ্যে ময়মনসিংহে ১২ জন, নেত্রকোনায় ৯ জন, জামালপুরের ৪ জন, টাঙ্গাইলের ২ জন, শেরপুর, গাজীপুর ও সুনামগঞ্জের একজন করে রয়েছে।

করোনা আক্রান্তে মৃতরা হলো- ময়মনসিংহ সদরের আবদুল সালাম (৮০), মোঃ সিরাজুল হক (৫৫),  ভালুকা উপজেলার আব্দুল হামিদ (৭২), মুক্তাগাছা উপজেলার নুরুল হক (৮৪), আছিয়া খাতুন (১০০), নেত্রকোনা সদরের পুষ্পা (৩০), সাদেক (৪৯), মদন উপজেলার মাহবুব (৬৫), কলমাকান্দা উপজেলার আবাদুল মজিদ (৬৭), পূর্বধলা উপজেলার আব্দুল করিম (৫৫), আটপাড়া উপজেলার মাহমুদুল হাসান (৬৫), জামালপুর সদরের আব্দুল মজিদ (৭০), হাজেরা বেগম (৬০), টাঙ্গাইল মধুপুর উপজেলার আব্দুল সামাদ (৬৫), সফিপুর উপজেলার সানোয়ার হোসেইন (৮৫) এবং গাজীপুর শ্রীপুরের সিরাজুল ইসলাম (৮৫)।

এছাড়াও সন্দেহজনক উপসর্গ নিয়ে যারা মারা গেছেন তারা হলো- ময়মনসিংহ সদরের শাহাবুদ্দিন (৫৭), আব্দুর রহিম (৭০), তারাকান্দা উপজেলার নূরজাহান (৫৫), হোসেন আলী (৬৫), ফুলপুর উপজেলার মুজিবুর রহমান (৬৫), হালুয়াঘাট উপজেলার সাইয়িদ আলী (৭৯), নান্দাইল উপজেলার নজরুল ইসলাম (৭০), নেত্রকোনা মদন উপজেলার আছিয়া (৭৫), পূর্বধলা উপজেলার সালেমা (৫৮), দুর্গাপুর উপজেলার আব্দুর রশীদ (৬৫), জামালপুর সরিষাবাড়ী উপজেলার মজেদা বেগম (৬৫), দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ইমাম হোসেন (২৬), শেরপুর সদরের ফিরোজা (৬৫) এবং সুনামগঞ্জ জামালগঞ্জের সুধারঞ্জন সরকার (৫০)।

এ ছাড়াও ২৩দিন ও ১৭দিন বয়সের দুই নবজাতক করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। অন্যদিকে করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে নতুন ৫১ জন ভর্তিসহ এখন পর্যন্ত ৫২৫ জন এবং আইসিউতে ২৩ জন চিকিৎসাধীন আছেন। সুস্থ হয়েছেন ৮৭ জন।

এদিকে সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৭১১ টি নমুনা পরীক্ষায় আরো ৪০২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৩.৪৯ শতাংশ। জেলায় মোট আক্রান্ত ১৭ হাজার ৯৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১২ হাজার ৩৪৯ জন।