পর্দা নামলো টোকিও অলিম্পিক গেমসের

খেলাধুলা

পর্দা নামলো ৩২তম টোকিও অলিম্পিক গেমসের।

শেষ দিনে চমক দেখিয়ে পদক তালিকায় শীর্ষে উঠে আসে যুক্তরাষ্ট্র। আড়ম্বরপূর্ণ সমাপণী অনুষ্ঠানে তুলে ধরা হয় জাপানের সংস্কৃতি ও ইতিহাস। সমাপনী বক্তব্য রাখেন আইওসির সভাপতি টমাস বাখ। মশাল তুলে দেয়া হয় পরবর্তী আসরের আয়োজক প্যারিস অলিম্পিক কর্তাদের হাতে।   

অবেশেষে মেলা ভাঙ্গলো। ইতিহাসের সবচেয়ে কঠিন মহামারিকালে অনুষ্ঠিত হলো অলিম্পিকের ৩২তম আসর। জাপানের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনের রথী-মহারথীরা।

জাপানী সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় সমাপনী অনুষ্ঠান। দেশটির শিল্প সংস্কৃতি উঠে এলো স্থানীয় শিল্পীদের কোরিওগ্রাফিতে। অলিম্পিকের সামপনী মঞ্চে দেয়া হলো পুরুষ ও নারী ম্যারাথনের পদক, দুই বিভাগের স্বর্ণ গেছে কেনিয়ার ঘরে।

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির চেয়ারম্যান টামাস বাখসহ অন্যান্যা কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে শুরু হয় জাপানের ট্রেডিশনাল শো। এরপর কোরাস অর্কেস্ট্রার মুর্ছনা, ভিজুয়াল পরিবশেনায় উঠে আসে করোনা বিধ্বস্ত পৃথিবীতে মানুষের টিকে থাকার লড়াই, ভয়কে জয় করে এগিয়ে যাবার দৃঢ় মনোবল।

টোকিও থেকে চলে দর্শকের দৃষ্টি টেনে নিয়ে যাওয়া হয় ফ্রান্সে, ভেসে ওঠে প্যারিসের চিত্র, আইফেল টাওয়ারের দেশেই যে ২০২৪ এর সামার অলিম্পিক। অ্যারোপ্লেন স্মোক ওয়াকে ফুটে উঠে ফ্রান্সের সিগনেচার কালার।

সব শেষে টোকিও অলিম্পিক কমিটির প্রধান সিইকো হাশিমোতো কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন গেম সংশ্লিষ্ট সকলে প্রতি। সমাপনী বক্তৃতায় আয়োজক, অ্যাথলেট কমর্কতা কর্মচারীসহ অংশগ্রহনকারী সকল দেশকে ধণ্যবাদ জানান ইন্টার ন্যাশনাল অলিম্পিক মিটির প্রেসিডেন্ট টমাস বাখ।