দীর্ঘ ৫০ বছর পর বৈরাগীর খালে বইছে পানি, চলছে নৌকা

বাংলাদেশ সকল জেলা

দীর্ঘ ৫০ বছর পর আবারও সচল হলো গোপালগঞ্জের বৈরাগীর খাল। স্থানীয়দের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে অবশেষে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে খালটি সংস্কার করায় খুশি বাসিন্দারা। 

বৈরাগীর খালে এখন বইছে পানি, চলছে নৌকাও। স্থানীয়রাও একটু স্বস্তির জন্য আসছেন খাল পাড়ে। কিন্তু গত ৫০ বছর ধরে এ চিত্র ছিলো ভিন্ন। 

স্বাধীনতার সময় শহরের থানা পাড়া এলাকায় খালের উপর রাস্তা তৈরি করায় বন্ধ হয়ে যায় মধুমতি নদীর সাথে সংযোগ। এরপর থেকে আর জোয়ারের পানি প্রবেশ করেনি খালে। এর পাড়ে অবৈধ স্থাপনা তৈরি করতে থাকেন দখলদাররা। শহরের বিভিন্ন স্থানের ময়লা আবর্জনাও ফেলা হতো এই খালে। দুর্গন্ধে পাড়ের মানুষের জীবন ছিলো অতিষ্ঠ।   

স্থানীয়দের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে অবশেষে জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে রাস্তা কেটে তৈরি করা হয়েছে সেতু, উচ্ছেদ করা হয় অবৈধ স্থাপনাও। ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার করে করা হয়েছে খনন। প্রাণ ফিরে পেয়েছে খালটি। জোয়ারের পানির স্রোত বইছে। এতে খুশি খাল পাড়ের মানুষও।

গোপালগঞ্জ পৌরসভার সহযোগিতায় ৫ কিলোমিটার খালটি সংস্কার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।    

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ফাইজুর রহমান ফয়েজ বলেন,খালে যেসব ময়লা ছিল তা আমরা অপসারণ করেছি। পাশাপাশি এই খালে বিভিন্ন ক্রস বাধ ছিল সেগুলো সেগুলোও সরানো হয়েছে। এছাড়া থানাপাড়া-মিয়াপাড়াতে ময়লা এবং মাটির যে স্তুপ ছিল সেগুলো সরিয়ে প্রায় আধা কিলোমিটারের মত খাল নতুন করে খনন করেছি।

খালটির পাড়ে যেন আবারও অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠতে না পারে সে বিষয়ে নজরদারির দাবি স্থানীয়দের।