রাজধানীতে গ্যাস সংকটের সুরাহা হয়নি, ভোগান্তিতে মানুষ

বাংলাদেশ

দুই দিনেও রাজধানীতে গ্যাস সংকটের কোনও সুরাহা হয়নি, ভোগান্তিতে নগরবাসী। এদিকে, আজকের মধ্যে বিবিয়ানা গ্যাস ক্ষেত্রের ৫টি কূপে উৎপাদন স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে জানিয়েছেন, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান।

গ্যাস ক্ষেত্রটির ছয়টি কূপেই কাজ চলছে বলে জানান তিনি। কূপগুলোতে জরুরিভিত্তিতে উৎপাদন বন্ধ করে দেয়ায় ৪২০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়।

রাজধানীতে রবিবার হঠাৎ করেই গ্যাস সংকট দেখা দেয়। এতে বিপাকে পড়েন গ্রাহকরা। বিশেষ করে ইফতার এবং সেহেরি খাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েন রাজধানীবাসী। একদিন পরও এই সমস্যা সমাধান হয়নি।

ভুক্তভোগীরা বলেন, ‘ গ্যাস না থাকায় রান্নাবান্না করা যাচ্ছে না। বাইরে থেকে কিনে এনে খেতে হচ্ছে। কোনো দিন দেখা যায় একবারের জন্যও গ্যাস আসে না।’

এখনও রাজধানীর ধানমন্ডি, সূত্রাপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় গ্যাস সংকট রয়েছে। সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন হোটেল ব্যবসায়ীরা।

জটিলতার কারণে সিলেটের বিবিয়ানা গ্যাস ক্ষেত্রের ৬টি কূপে হঠাৎ উৎপাদন বন্ধ করে দেয়ায় এই সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে জানান পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান। তিনি বলেন, ‘আজকের রাতের মধ্যে আশা করছি, তৃতীয় কূপটি অপারেশনে চলে আসবে। তাতে করে আমরা তিনটি কূপ থেকে প্রোডাকশন পুরোটা পাবো। অর্থাৎ, অর্ধেক সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। অবশিষ্ট যা থাকবে তার জন্য আমরা চেষ্টা চালিয়ে চাচ্ছি।‘

গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করতে এলএনজি আমদানি অব্যাহত আছে বলেও জানান তিনি।