রাবি’র অধ্যাপক তাহের হত্যা মামলায় দু’জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল

বাংলাদেশ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. এস তাহের হত্যা মামলায় সহকর্মী মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ও তার বাড়ির কেয়ারটেকার জাহাঙ্গীর আলমের মৃত্যুদণ্ড এবং দু’জনের যাবজ্জীবন বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ।

তারা হলেন, আব্দুস সালাম ও নাজমুল আলমের। প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের ৬ সদস্যর বিচারপতির বেঞ্চ এই রায় দেন। গত ১৬ই মার্চ উভয়পক্ষের করা আপিলের ওপর শুনানি শেষে রায়ের জন্য আজ দিন ধার্য করেছিল আপিল বিভাগ।

এর আগে, ২০০৬ সালের ১লা ফেব্রুয়ারি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কোয়ার্টারের ম্যানহোল থেকে অধ্যাপক তাহেরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে সানজিদ আলভি আহমেদ মতিহার থানায় অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। সে মামলায় ২০০৮ সালের ২২ মে রাজশাহীর দ্রুত বিচার আদালত চারজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং দুইজনকে খালাস দেন।

পরে, ২০১৩ সালের ২১ এপ্রিল রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে তাহেরের এক সময়ের ছাত্র ও পরে বিভাগীয় সহকর্মী মিয়া মোহাম্মদ মহিউদ্দিন এবং তাহেরের বাসভবনের তত্ত্বাবধায়ক জাহাঙ্গীরের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়।

অপর দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। দন্ডিত চার আসামি বর্তমানে কারাগারে আছে।